বাবরী মসজিদ নিয়ে আদালতের ফায়সালা ছাড়া কারো কোন পদক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না: ল বোর্ড

উত্তর প্রদেশের লক্ষ্ণৌ-এ অবস্থিত নদওয়াতুল উলামায় অনুষ্ঠিত হয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড-এর ওয়ার্কিং কমিটির এক জরুরি কনফারেন্স৷ কনফারেন্সে বাবরী মসজিদ ইস্যুতে ল’ বোর্ডের সম্মিলিত সিদ্ধান্তও ঘোষণা করা হয় অানুষ্ঠানিক ভাবে৷\


নদওয়াতুল উলামা লক্ষ্ণৌ-তে অনুষ্ঠিত উক্ত কনফারেন্স রবিবার সকাল ৯টায় আরম্ভ হয়ে শেষ হয় বেলা ১টায়৷ দীর্ঘ চার ঘন্টা পর্যন্ত চলে উক্ত কনফারেন্স৷

কনফারেন্স শেষে সম্মিলিত সিদ্ধান্ত হিসেবে ঘোষণা করা হয়, বাবরি মসজিদ ইস্যুতে ল’ বোর্ড আদালতের ফায়সালা চায়৷ আদালতের ফায়সালা ছাড়া কেউই যেনো কোনো পদক্ষেপ না নেয় সেই হুশিয়ারিও দেয় মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড৷




জানা গেছে, মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড এমন হুশিয়ারি দেয়ার কারণ, বাবরি মসজিদ ইস্যুটি বর্তমানে ভারতের উচ্চ আদালতে প্রক্রিয়াধীন৷ উচ্চ আদালতে এখনও কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি এ ব্যাপারে৷ কিন্তু আদালতের মতকে উপেক্ষা করেই হিন্দুত্ববাদী দাবীদাররা একের পর এক প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির নির্মাণের৷

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভারতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতের গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি প্রদেশের প্রাদেশিক নির্বাচন৷ পাঁচটি প্রদেশের কোনো কোনো প্রদেশ বিজেপির ঘাটি বলেই বিবেচিত হতো বহুদিন যাবৎ৷ কিন্তু সদ্য সমাপ্ত হওয়া ভোটের চূড়ান্ত ফলাফল বের হলে দেখা যায়, প্রতিটি প্রদেশেই হেরে বসেছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বিজেপি৷

পাঁচটি রাজ্যের পাঁচটিতেই কঠিন হোঁচট খেয়েছে বিজেপি৷ কিছু দিনের ব্যবধানেই ভারতের জাতীয় নির্বাচন৷ তাই আপাতত রাম মন্দিরই বিজেপির শেষ ভরসা৷ উক্ত পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফলের পর বিজেপি নেতাদের উপলব্ধি হলো তাদের জন্য অন্য কোন কিছুই আর যথেষ্ট নয়। আপাতত অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির দাবিতেই ফিরতে চাইছে তারা।

জানা গেছে, মন্দিরের দাবী নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণার নির্দেশও এসেছে কেন্দ্র থেকে৷ তবে মন্দির নিয়ে প্রচার যতটা প্রকাশ্যে হবে, তার থেকেও বেশি হবে ঘরোয়া সভা-আলোচনা চক্রে এবং বাড়ি বাড়ি কর্মী পাঠিয়ে।




পাঁচ রাজ্যের ভোটে হেরে বিজেপি নেতারা কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছেন না আপাতত। তারা আগামীতে জিততেই চায় যে কোনো মূল্যে৷ তাই বিজেপি নেতাদের দাবী রামমন্দির আন্দোলনই তাদের দলকে সারা ভারতে ছড়িয়ে দিয়েছিল৷ এবার রাম মন্দির আন্দোলনেই সরব থাকবে তারা৷

উক্ত বিষয়টিকে কেন্দ্র করে ভারতে রাম মন্দির আন্দোলন মাথা চাড়া দিয়ে ওঠায় মুসলমানরাও নতুন উদ্যমে ভাবতে শুরু করেছে বাবরি মসজিদের বিষয়ে৷ তারই ধারাবিহকাতায় বাবরি মসজিদ ইস্যুতে জরুরি কানফারেন্স ডাক দেয় বাবরি মসজিদ ইস্যুতে সরব সংগঠন মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড৷ জরুরি কনফারেন্স করে নিজেদের অবস্থান ঘোষণা করে হুশিয়ারিও প্রকাশ করেন ল’ বোর্ড কতৃপক্ষগণ৷

ল’ বোর্ডের উক্ত কনফারেন্সে বাবরী মসজিদ ইস্যুর পাশাপাশি আলোচিত হয়ে ভারতের আদালতে বিবাদমান মুসলমানদের ধর্মীয় অন্যান্য বিষয়াদি নিয়েও৷ বিবাদমান বিষয়গুলোতে করণীয় ও বর্জনীয় নিয়ে আলোকপাত করা হয় বিশেষভাবে৷




নদওয়াতুল উলামার মহাপরিচালক মাওলানা রাবে হাসানী নদবী-এর সভাপতিত্বে উক্ত কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয় ৷ কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন ল’ বোর্ড ওয়ার্কিং কমিটির অন্যান্য সদস্যরাও৷

কনফারেন্সে ওয়ার্কিং কমিটির উপস্থিত সদস্যদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন, মুসলিম পার্সোনাল বোর্ডের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা সাজ্জাদ নোমানী, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি মাওলানা আরশাদ মাদানী, আল-মা’হাদু আ’লী হায়দারাদ-এর প্রিন্সিপ্যাল মুফতী খালেদ সাইফুল্লাহ রাহমানি, নদওয়াতুল উলামার সিনিয়র উস্তাদ মুফতী আতিক আহমাদ কাসেমী প্রমুখ৷

Post a Comment

0 Comments