ইসলামিক স্টেট ‘পরাজিত’, সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার আমেরিকার

পশ্চিম এশিয়ায় নয়া সমীকরণ তৈরি করে সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করল আমেরিকা।মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, সন্ত্রাস জর্জরিত দেশটিতে পরাজয় হয়েছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের। তাই সে দেশে মোতায়েন মার্কিন সৈন্যদের ফেরত নিয়ে আসা হবে।





সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক যৌথবাহিনীতে রয়েছে প্রায় ২ হাজার মার্কিন সেনা। শুধু আইএস নয়, আসাদপন্থী মিলিশিয়াদের সঙ্গেও লড়াই হয়েছে মার্কিন ফৌজের। একের পর এক মার্কিন বোমারু বিমান ও ক্রুজ মিসাইল হামলায় গুঁড়িয়ে গিয়েছে অধিকাংশ জঙ্গিঘাঁটি। সিরিয়ায় আইএস-এর গড় রাকা ও ইদলিব শহরও প্রায় বিধ্বস্ত। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে জমি খুইয়ে বেকায়দায় সন্ত্রাসবাদী সংগঠনটি। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে শক্তিক্ষয় হলেও এখনও যথেষ্ট প্রভাবশালী আইএস। পেন্টাগন সুত্রে খবর, উত্তর-পূর্ব সিরিয়ার অধিকাংশই আইএস-এর দখল থেকে মুক্ত করেছে মার্কিন বাহিনী। তবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে এখনও মজুত রয়েছে জঙ্গিদের বেশ কয়েকটি দল। তাই ওই দেশ থেকে মার্কিন সেনাদের ফিরিয়ে আনা হবে। তবে কবে থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে, তা নিয়ে নিরাপত্তাজনিত কারণে বিস্তারিত জানায়নি মার্কিন প্রশাসন।





এদিকে আকস্মিকভাবে সিরিয়া থেকে আমেরিকার সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত তৈরি করেছে নয়া সমীকরণ। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের মতে আমেরিকার প্রস্থানে সিরিয়ায় আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠবে রাশিয়া ও ইরান। আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠবেন সিরিয়ান প্রেসিডেন্ট বাশার-আল-আসাদ। মার্কিন সিদ্ধান্তে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে ইজরায়েলও। সীমান্তের কাছেই রুশ সেনার উপস্থিতিতে অশনি সংকেত দেখছে তেল আভিভ। প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু সাফ জানিয়েছেন, যে কোনও পরিস্থিতিতে নিজেকে রক্ষা করবে ইজরায়েল। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে সিরিয়া নিয়ে তুঙ্গে জল্পনা।      

Post a Comment

0 Comments