পাকিস্তানকে পালটা দিতে লোকসভা ভোট পিছিয়ে দেওয়ার দাবি বিজেপি নেতার

পুলওয়ামা হামলার জেরে লোকসভা ভোট পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানালেন বিজেপি নেতা। গুজরাটের মন্ত্রী তথা রাজ্য বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা গণপতসিন বাসাবার দাবি, পুলওয়ামার হামলা সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে। যে কোনওভাবে এর পালটা দিতে হবে। এর জন্য প্রয়োজনে লোকসভা ভোট পিছিয়ে দিতে হবে।


আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই লোকসভা ভোট ঘোষণা হয়ে যাওয়ার কথা। নির্বাচন কমিশন সূত্রে সেই ইঙ্গিত আগেই মিলেছে। ভোট ঘোষণা হয়ে যাওয়া মানে সরকারের তুলনায় প্রশাসনিক দায়িত্ব বেশি থাকবে নির্বাচন কমিশনের হাতে। সেক্ষেত্রে পুলওয়ামার হামলার বদলা নেওয়ার কাজে সমস্যা হতে পারে। তাছাড়া, ভোট ঘোষণা হয়ে গেলে দেশের অভ্যন্তরের নিরাপত্তা এবং ভোটের কাজে প্রচুর বাহিনী মোতায়েন করার প্রয়োজন পড়বে। এসব যুক্তি দিয়ে নেটিজেনদের একাংশ আগে থেকেই ভোট পিছানোর দাবি জানাচ্ছেন। এবার বিজেপির তরফেও সেই দাবি জানানো হল। গুজরাটের একটি সভায় রাজ্যের মন্ত্রী বলেন, “যেভাবেই হোক পাকিস্তানকে শিক্ষা দিতে হবে। সেজন্য যদি প্রয়োজন হয় লোকসভা ভোট মাস দুয়েক পিছিয়ে দেওয়া হোক। ১২৫ কোটি ভারতীয় এখন চাইছে সেনা জওয়ানরা এর বদলা নিক। আমরা অবশ্যই এই হামলার বদলা নেব।” নিরাপত্তারক্ষীদের উপর বিশ্বাস দেখিয়ে গুজরাটের এই মন্ত্রী বলছেন, “আমাদের সেনার উপর পূর্ণ আস্থা আছে। সিআরপিএফ জানিয়ে দিয়েছে, বদলা নেওয়ার স্থান ও কাল তাঁরা শীঘ্রই ঠিক করবে।”

বিজেপি নেতা এই দাবি জানালেও, সরকার বা নির্বাচন কমিশনের তরফে এমন কোনও ইঙ্গিত এখনও মেলেনি। বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বও পুলওয়ামা হামলার পরদিন থেকেই জোরকদমে ভোটের প্রচারে নেমে পড়েছে। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও বিভিন্ন রাজ্যের সফরসূচিতে কোনও পরিবর্তন করেননি। তাই, রাজনৈতিক মহল মনে করছে ভোট পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা খুব একটা নেই। তাছাড়া, ভোট পিছোতে হলে অনেক সাংবিধানিক জটিলতা তৈরি হতে পারে।

Post a Comment

0 Comments