কালবৈশাথীতে বিপর্যস্ত ট্রেন চলাচল, দুর্ভোগের শিকার নিত্যযাত্রীরা

কালবৈশাখীতে বিপর্যস্ত ট্রেন পরিষেবা। সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনে নাকাল নিত্যযাত্রীরা। হাওড়া-বর্ধমান কর্ড লাইনে ব্যাহত ট্রেন চলাচল। আটকে পড়েছে গণদেবতা এক্সপ্রেস ও কোলফিল্ড এক্সপ্রেস। ধীর গতিতে চলছে লোকাল ট্রেনও। একই পরিস্থিতি শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায়ও। প্রবল ঝড়ে শিয়ালদহ স্টেশনের ১২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে একটি ফ্লেক্স এসে পড়েছে। ফলে আপাতত ওই প্ল্যাটফর্ম থেকে বন্ধ ট্রেন চলাচল।


বসন্তের শুরুতেই কালবৈশাখী। সোমবার ভোররাতে প্রবল বৃষ্টি ও ঝোড়া হাওয়ায় লণ্ডভণ্ড দশা শহর কলকাতার। একই পরিস্থিতি দক্ষিণবঙ্গের অন্য জেলাগুলিতে এবং যথারীতি বিপর্যস্ত ট্রেন চলাচলও। এখনও পর্যন্ত যা খবর, প্রবল ঝড়ে হাওড়া-বর্ধমান কর্ডলাইনে বিভিন্ন স্টেশনে ওভারহেড তাঁর ছিঁড়ে গিয়েছে। অনেক স্টেশনেই রেললাইনে বিদ্যুৎ চলে গিয়েছে। ফলে লোকাল ট্রেন চলাচলে সমস্যা দেখা গিয়েছে। সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনেই সকাল থেকে হাওড়া-বর্ধমান কর্ড লাইনে ধীরগতিতে চলছে লোকাল ট্রেন। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে, আটকে পড়েছে গণদেবতা ও কোলফিল্ড এক্সপ্রেসও। দুরপাল্লার দুটি ট্রেনই দেরিতে চলছে বলে খবর। একই পরিস্থিতি পরিস্থিতি শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায়। বিভিন্ন স্টেশনে ওভারহেড তার ছিঁড়ে ব্যাহত ট্রেন চলাচল। জানা গিয়েছে, প্রবল ঝড়ে ফ্লেক্স এসে পড়েছে। তাই সকাল থেকে শিয়ালদহ স্টেশনের ১২ নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে কোনও ট্রেন চলাচল করছে না। ভরা অফিসে সমস্যায় পড়েছেন নিত্যযাত্রীরা। এদিকে শিয়ালদহ বজবজ শাখায় লেক গার্ডেন্স উড়ালপুলে একটি গাছ ভেঙে পড়েছে। তাই ঢাকুরিয়া স্টেশনের কাছে ধীর গতিতে চলছে লোকাল ট্রেন। দমদম স্টেশনের কাছেও লোকাল ট্রেনের গতি শ্লথ। সবমিলিয়ে অকাল কালবৈশাখীর জেরে সোমবার সকাল থেকে বিপাকে রেলযাত্রীরা।

এদিকে আবার সুন্দরবনের ঝড়খালিতে প্রবল ঝড়ে নৌকা থেকে পড়ে মারা গেলেন এক পর্যটক। ঝড়খালিতে বেড়াতে গিয়েছিলেন সাতজনের এক পর্যটক দল। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রবিবার রাতে মাতলা নদীতে নৌকাতেই ছিলেন তাঁরা। ভোরে দিকে যখন ঝড় ওঠে্, তখন পাড়ের দিকে ফিরছিলেন পর্যটকরা। তখনই দুর্ঘটনা ঘটে। প্রবল ঝড়ে জেটিতে ধাক্কা লেগে উলটে যায় নৌকাটি। জলে ডুবে মারা যান অভিষেক পণ্ডা নামে বছর বাইশের এক যুবক। তিনি পশ্চিম মেদিনীপুরের নারায়ণগড়ের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

Post a Comment

0 Comments