রাজ্যের ভূমিকা নিষ্ঠুর ও বেদনাদায়ক’, এসএসসি ইস্যুতে রাজ্যকে তোপ সৌমিত্রর

এবার এসএসসি চাকরি প্রার্থীদের পাশে দাঁড়ালেন দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়৷ রাজ্য সরকারের অবস্থানের সমালোচনা করে জানালেন, চাকরি প্রার্থীদের সমস্যা সমাধানে রাজ্য সরকার কোনও সদর্থক ভূমিকা পালন করছে না৷ যা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। এটা নির্দয় মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ৷ রাজ্যে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করেও, দেশের প্রবাদ প্রতিম এই অভিনেতা অনুরোধ করলেন, যেন দ্রুততার সঙ্গে এই চাকরি প্রার্থীদের সমস্যা সমাধানের ব্যবস্থা করা হয়

এর আগে শুক্রবারই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন চাকরি প্রার্থীরা৷ যদিও সেই বৈঠকে তেমন কোনও সুরাহা হয়নি৷ তবে শিক্ষামন্ত্রী তাঁদের আশ্বাস দেন, আগামী বছর থেকে এসএসসি-র নিয়োগ প্রক্রিয়া সরল করা হবে। এছাড়া অনশনকারীদের সমস্যা সমাধানে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গড়ে দেন শিক্ষামন্ত্রী৷ সূত্রের খবর, অনশনকারীদের বলা হয়েছে, তাঁদের সমস্ত অভিযোগ দু’দিনের মধ্যে লিখিত ভাবে ওই কমিটির কাছে জমা দিতে৷ কমিটি সেই সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখবে৷ এবং প্রয়োজনে ১৫ দিনের মধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। তবে আজ পর্যন্ত ওই কমিটির কাছে কোনও অভিযোগ জমা পড়েছে কিনা, সেবিষয়ে স্পষ্ট কোনও উত্তর পাওয়া যায়নি৷ অন্যদিকে শনিবার থেকেই পুলিশের বিরুদ্ধে ভয় দেখিয়ে অনশন তোলার অভিযোগে সরব হন এসএসসি চাকরি প্রার্থীরা৷ তাঁরা জানান, শনিবার দুপুরে কলকাতা পুলিশের কয়েকজন আধিকারিক এসে কার্যত হুমকি দিয়ে তাঁদের শান্তিপূর্ণ অনশন তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেন৷ তাঁদের বলেন, সেনার তরফে নাকি আপত্তি করা হয়েছে৷ তাই অনশন মঞ্চ তুলে দিতে হবে৷ নাহলে আইনি প্রক্রিয়ায় অনশন তুলে দেওয়া হবে৷ যদিও পুলিশের হুঁশিয়ারির পরেও অনশন চালিয়ে যাওয়ায় সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা৷

রবিবার অনশন মঞ্চে যান নিখিল বঙ্গ শিক্ষক সমিতি, বৃহত্তর গ্রাজুয়েট টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনর শিক্ষকরা৷ আগেই এসএসসি অনশনকারীদের পাশে দাঁড়িয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন কবি শঙ্খ ঘোষ। বিগত তিনদিন ধরে অনশন মঞ্চেই রয়েছেন কবি মন্দাক্রান্তা সেন। সোমবার কলকাতার সুবোধ মল্লিক স্কোয়্যার থেকে কলকাতা প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থিত অনশন মঞ্চ পর্যন্ত মিছিল করবে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর। শনিবারই এসএসসি চাকরি প্রার্থীদের সঙ্গে দেখা করেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু৷ তাঁদের সঙ্গে সর্বতোভাবে থাকার আশ্বাস দেন তিনিও৷ চাকরির দাবিতে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করছেন এসএসসি কর্মপ্রার্থীরা। তাঁদের অভিযোগ, অনশনকারীদের ত্রিপল টাঙানোর অনুমতি দেওয়া হয়নি। ফলে ঝড়-বৃষ্টিতে ফুটপাথের উপর কষ্টে দিন কাটছে তাঁদের। ইতিমধ্যে ওই অনশন মঞ্চে গিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা৷ বামেরা ছাড়াও কংগ্রেস-বিজেপি নেতারাও এসএসসি চাকরি প্রার্থীদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন৷ সেখানে গিয়েছেন বিশিষ্টরা ব্যক্তিরাও৷
রবিবার ২৫তম দিনে পড়ল এসএসসি চাকরি প্রার্থীদের এই অনশন৷ ইতিমধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন প্রায় ৭০ জন৷ অনেকেরই ইউরিন ইনফেকশনের মতো সমস্যা দেখা দিয়েছে৷ বিশেষ করে শৌচালয়ের সমস্যায় ভুগছেন মহিলারা৷ তাঁরা জানিয়েছেন, সকালে সুলভ ব্যবহারের সুযোগ থাকলেও রাতে তা সম্ভব হয় না৷ ফলে সারা রাত একপ্রকার জল না খেয়েই কাটাতে হয়৷ ফলে ইউরিন ইনফেকশনের মতো সমস্যা বাড়ছে৷

Post a Comment

0 Comments