দার্জিলিংকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি পাহাড়ি দলগুলির

জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।পাশাপাশি রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর তাতেই আশার আলো দেখছে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি। দার্জিলিং কে বিধানসভাসহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি জানিয়েছে তারা।


জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।পাশাপাশি রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর তাতেই আশার আলো দেখছে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি। দার্জিলিং কে বিধানসভাসহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি জানিয়েছে তারা।

দার্জিলিং-এর বিজেপি সাংসদ রাজু ভিস্তের জানান, তিনি আশাবাদী, প্রতিশ্রুতিমতো ২০১৪-এর মধ্যে “স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান” করবে গেরুয়া শিবির। যদিও, বাংলাকে ভাগ করার কোনওরকম পদক্ষেপের বিরোধিতা করা হবহে বলে জানিয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। সোমবার জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ নম্বর ধারা প্রত্যাহার করে নেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

জম্মু কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জম্মু ও কাশ্মীরকে একটি বিধানসভাযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং লাদাখকে বিধানসভাবিহীন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।

বিমল গুরুং-এর নেতৃত্বাধীন গোর্খাজনমুক্তি মোর্চার তরফে বলা হয়েছে, পাহাড়ে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তা পালন করুক বিজেপি। পৃথক রাজ্যের দাবিতে প্রায় একদশক ধরে উত্তপ্ত পাহাড়।
দলীয় সুপ্রিমো বিমল গুরুংকে উদ্ধৃত করে মোর্চা নেতা রোশন গিরি সংবাদসংস্থা পিটিআইকে বলেন, “কয়েক বছর ধরে, আমরা পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবি জানাচ্ছি।বিজেপিও তাদের ইস্তেহারে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল”। তিনি আরও বলেন, “আমরা মনে করি, বিধানসভাসহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরি করার এটাই সঠিক সময়। আমরা খুব দ্রুতই এটা নিয় বিক্ষোভ করব”।

পাহাড়ের অন্যান্য ছোটো সংগঠনগুলোর থেকেও সমর্থন পেয়েছে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা এবং জিএনএলএফ। পাহাড়ের সমস্ত রাজনৈতিক দলের মতামতকেই তিনি সম্মান করেন বলে জানিয়েছেন বিজেপি সাংসজদ রাজু ভিস্ত। সমাধানের ক্ষেত্রে সমস্ত উপায় নিয়েই আলোচনা হবে বলেও জানান তিনি।

Post a Comment

0 Comments