ইংরেজদের উত্তরাধিকার বহন করছেন মোদী-অমিত শাহরা : কলকাতায় বললেন কানাইয়া কুমার

গতকাল ৭৩ তম স্বাধীনতা দিবসের দিনে কলকাতার রাজাবাজারে এক সমাবেশের আয়োজন করে এনআরসি বিরোধী যুক্ত মঞ্চ । এই মঞ্চের ডাকে এদিনের সভায় প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন তরুণ সিপিআই নেতা কানাইহিয়া কুমার । তিনি এদিন বলেন , আমাদের দেশে ব্রিটিশ আসার আগে পর্যন্ত এদেশে হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে কোনো সমস্যা ছিল না । নিজেদের ক্ষমতাকে ধরে রাখার লক্ষ্যে ব্রিটিশ বুঝতে পেরেছিল এদেশকে শাসন করতে হলে অন্যপথ অবলম্বন করতে হবে । তিনি বলেন ,আমাদের দেশে বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য এমনভাবে রয়েছে যে খুব সহজে তা ভাঙা যাবে না। এটা বুঝতে পেরে তারা ধর্মকে ব্যবহার করে । আমরা ব্রিটিশের কাছ থেকে স্বাধীনতা পেয়েছি।


পাকিস্থানও ব্রিটিশের কাছ থেকে স্বাধীনতা পেয়েছে । তারা এমন স্বাধীনতা দিয়ে গেছে যে , এখন আমরা স্বাধীনতা দিবসে নিয়ম করে একে অপরকে গালাগালি দিচ্ছি । আপনারা লক্ষ্য করে দেখবেন প্রতি বছর ১৪ আগষ্ট স্বাধীনতা দিবসের দিনে পাকিস্থান আমাদেরকে গালাগালি করছে , আর আমরা প্রতিবছর ১৫ আগষ্ট পাকিস্থানকে গালাগালি করছি। এটাই এখন আমাদের দুই দেশের সংস্কৃতি । কারণ আমরা ভুলে গেছি আমাদের এই পরিণতির জন্য ব্রিটিশরা দায়ী ।

সাম্রাজ্যবাদী ইংরেজরা ক্ষমতায় থাকার জন্য ভারতের মানুষকে বলতো আমরা তোমাদের জন্য রেল করেছি , তোমাদের ভাল ভাল বাড়ি করেছি। আর এখন যারা ক্ষমতায় আছে সেই ভাজপা একই কথা বলছে । দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদ তৈরি করছে । তিনি বলেন , ১৯৪৫ সালে জিন্নাহ যে দাবি করেছিলেন সেই দাবি কী আজকের দিনে করা যায় ? জিন্নাহ কোনো দিন মসজিদে যাননি । তবু তিনি পাকিস্থানের দাবি করেছিলেন । গোলওয়ালকারও কোনো দিন মন্দিরে পুজো দিতে যাননি । তবু তিনি হিন্দুত্বের স্লোগান দিয়েছিলেন । এরা আসলে কারা ? এদের পেছনে কারা ছিলেন ? ব্রিটিশরা । তারা বুঝতে পেরেছিল ভারত তাদেরকে ছাড়তেই হবে । তাই তারা যাওয়ার আগে এমন এক ব্যবস্থা করে দিয়ে গেল যাতে আমরা পরস্পর লড়াই করছি । আর আরএসএস বিজেপি-র কোনো অবদান স্বাধীনতা সংগ্রামে নেই । বরং তারা ব্রিটিশদের অনুকরণ করে বিভেদের রাজনীতি করেছে । ব্রিটিশের অনুচর হয়ে থাকতে চেয়েছে । আর ব্রিটিশের সেই চিন্তাভাবনার উত্তরাধিকার বহন করছেন মোদী-অমিত শাহরা।

Post a Comment

0 Comments